Saturday, 17 September 2016

The Annual Shibram (1940 - 1951)


শারদ শিবরাম (১৯৪০ – ১৯৫১)

== এই ব্লগে প্রদর্শিত অপরের রচনাংশ, স্থিরচিত্র বা অলংকরণের কপিরাইট আমাদের নয় ==
পোস্টের বক্তব্য স্পষ্টতর করতে এগুলি সাজানো হচ্ছেকোনও ব্যবসায়িক স্বার্থে নয়

From the 'Blogus' blog.
শিবরাম চক্রবর্তী (১৯০৩ ১৯৮০) ও দেব সাহিত্য কুটীর পূজাবার্ষিকী


********************************************************************************
সুদুর্লভ বই ও বার্ষিকীর অলংকরণ এবং সেই সংক্রান্ত তথ্যাদি সংগ্রহ করে দিয়ে নিঃস্বার্থে সাহায্য করেছেন
শ্রী দেবাশিস গুপ্ত, শ্রী কুন্তল মণ্ডল, শ্রী সমুদ্র বসু, শ্রী ইন্দ্রনাথ বন্দ্যোপাধ্যায়, শ্রী প্রণব ভট্টাচার্য, শ্রী সোমনাথ দাশগুপ্ত
এঁরা সকলেই ব্যস্ত মানুষ 
তবু যে এই অকিঞ্চিৎকর প্রয়াসের জন্য সময় ও শ্রম ব্যয় করতে কুণ্ঠিত হননি, তার মূলে এঁদের সংরক্ষণ-সদিচ্ছা এবং শিবরাম-প্রীতি ।
BlOGUS সবিশেষ কৃতজ্ঞ ।
********************************************************************************

১৯৩১ (১৩৩৮) থেকে দেব সাহিত্য কুটীর-এর সুদৃশ্য শারদ সংকলনসমূহ প্রকাশের সূচনা । 

১৯৩৬-এর শিশু গল্পিকা’-য় একটি গল্প ছিল শিবরাম চক্রবর্তী-র । কিন্তু বার্ষিকীর পরবর্তী কোনো সংস্করণ থেকে তা বাদ পড়ে ।   
লেখক-লিস্টে তাঁর নাম নিয়মিতভাবে যুক্ত হল ১৯৪০ সালে
পরের চার দশক ধরে, ‘হাসির গল্পঅংশে তিনিই ছিলেন অন্যতম আকর্ষণ ।

১৯৪০ ১৯৫১ - এই সময়কালের বারোটি শিবরাম-কাহিনির এক ফিরিস্তি থাকছে আজ BlOGUS ব্লগে
বিশ্লেষণ নয় । গবেষণা নয় । স্রেফ সচিত্র ন্যাড়া তালিকা   

-------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------


১) 
সাল : ১৯৪০ (১৩৪৭)
শারদীয়া : মায়া-মুকুর
সম্পাদক : প্রেমেন্দ্র মিত্র
শিবরাম-কাহিনি : আস্তে আস্তে ভাঙো !
From the 'Blogus' blog.
দেব সাহিত্য কুটীর বার্ষিকীমায়া-মুকুর’ (১৯৪০) ।

From the 'Blogus' blog.
মায়া-মুকুর’ (১৯৪০)-এ প্রকাশিত আস্তে আস্তে ভাঙো !


 বন্ধুবর প্রেমেন্দ্র মিত্র-র সম্পাদিত ‘মায়া-মুকুর’ বার্ষিকীর সূত্রে দেব সাহিত্য কুটীর-এ নিয়মিত অতিথি হলেন শিবরাম চক্রবর্তী
প্রতুল চন্দ্র বন্দ্যোপাধ্যায় (১৯০৩ – ১৯৭৪)-এর মজার অলংকরণ সহ বেরল ‘আস্তে আস্তে ভাঙো !
পরবর্তী বেশ কয়েকটি শারদীয়ায়, এই শিল্পীই চিত্রিত করেছেন চক্রবর্তী-র কত চমৎকার গল্প ।
From the 'Blogus' blog.
শিল্পী প্রতুল চন্দ্র বন্দ্যোপাধ্যায় (১৯০৩ ১৯৭৪) ।

দেব সাহিত্য কুটীর থেকে শিবরাম-এর একাধিক একক সংকলন প্রকাশিত হয় ।
প্রথমটিই বোধহয় ‘উদোর পিণ্ডি বুধোর ঘাড়ে’ (১৯৪২ ?)
এই  গ্রন্থের  আস্তে আস্তে ভাঙো !’-র সঙ্গে ‘মায়া-মুকুর’ সংস্করণের একটি বড় তফাৎ :
কাহিনির অন্তে চার্লস চ্যাপলিন-এর পরিবর্তে, ডিয়্যানা ডার্বিন-এর ফিল্ম দেখার উদ্যোগ করেন দুঃসংবাদ-দাতা ও গ্রহীতা

দুঃসংবাদ জ্ঞাপনের দুশ্চেষ্টা নিয়ে শিবরাম রচিত অপর এক অনুরূপ কিসসা ‘মানতুর খবরদারি 
ক্ষান্তমাসি’ বা ‘খবরদারি সহজ নয়’ নামেও কিঞ্চিৎ ভিন্ন চেহারায় যা লভ্য

-------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------


২)
সাল : ১৯৪১ (১৩৪৮)
শারদীয়া : সোনালী ফসল
সম্পাদক : সৌরীন্দ্রমোহন মুখোপাধ্যায়
শিবরাম-কাহিনি : হাওড়া-আমতা রেল লাইনে দুর্ঘটনা !
From the 'Blogus' blog.

সোনালী ফসল’ (১৯৪১)-এ প্রকাশিত হাওড়া-আমতা রেল লাইনে দুর্ঘটনা !
আমতা-আমতা না করেই বলি, এই গল্পখানি ঘিরে ঘটে গেল এক দুর্ঘটনা


শনিবারের চিঠি’-র পৌষ ১৩৪৮সংখ্যায় ‘সংবাদ-সাহিত্য’ বিভাগে লেখা হল :
From the 'Blogus' blog.
From the 'Blogus' blog.
From the 'Blogus' blog.
শনিবারের চিঠি’-র পৌষ ১৩৪৮সংখ্যার সংবাদ-সাহিত্যবিভাগ থেকে ।

বিদেশি উৎসের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে শিবরাম চক্রবর্তী-র উত্তর পাওয়া গেল ফাল্গুন ১৩৪৮ সংখ্যায় :
From the 'Blogus' blog.
শিবরাম চক্রবর্তী-র উত্তর, ‘শনিবারের চিঠি’-র ফাল্গুন ১৩৪৮ ।

From the 'Blogus' blog.

দাদু নাতির দৌড়’, গ্রন্থম (১৩৬৯) ।
প্রচ্ছদ : শৈল চক্রবর্তী


গ্রন্থাকারে প্রকাশিত শিবরাম-এর বহু ‘উপন্যাস’-ই, খণ্ড-খণ্ড স্বয়ংসম্পূর্ণ ঘটনা দ্বারা আলগাভাবে জোড়া ।
মগন পাঠকমাত্রেই দেখবেন, ঐ একটি ভেঙে পাঁচটি হয় । বিপরীতও সত্য ।

ধরুন ‘দাদু নাতির দৌড়’ গ্রন্থ
এই উপন্যাসের অন্তিম খণ্ডাংশ, স্রেফ ‘হাওড়া-আমতা রেল লাইনে দুর্ঘটনা !
শুধু ছোটগল্পের অনামা বাবা-ছেলে, বইতে হয়ে গেছেন দাদু ঘনশ্যাম আর নাতি টুসি

-------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------

৩)
সাল : ১৯৪২ (১৩৪৯)
শারদীয়া : মধু-মেলা
সম্পাদক : বুদ্ধদেব বসু 
শিবরাম-কাহিনি : পড়শীর টান !
From the 'Blogus' blog.
পড়শীর টান !’, মধু-মেলা’ (১৯৪২)

এই গল্পে, কথক-এর বোন বিনি উপস্থিত । কাজেই নামহীন ন্যারেটর-কে খোদ শিবরাম ধরে নেওয়া যায় ।
প্রতুল বন্দ্যোপাধ্যায়-এর অলংকরণে অবশ্য এক পাকানো গোঁফ প্রৌঢ়কে দেখা গেছে ।

পড়শীর টান নামেই একটি সম্পূর্ণ স্বতন্ত্র বড়দের কাহিনিও লিখেছিলেন শিবরাম চক্রবর্তী

-------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------

৪)
সাল : ১৯৪৩ (১৩৫০)
শারদীয়া : রূপ-রেখা
সম্পাদক : নৃপেন্দ্রকৃষ্ণ চট্টোপাধ্যায় 
শিবরাম-কাহিনি : মাস্তুতো ভাই !
From the 'Blogus' blog.
মাস্তুতো ভাই !’, রূপ-রেখা’ (১৯৪)

হেডপীসে এবার চশমা-শোভিত শিবরাম-কথক ।

কাহিনি-কেন্দ্রে লেখক -এর ‘মাস্তুতো ভাই 
অপর একটি গল্পে আছেন হর্ষবর্ধন-এর ‘মাসতুতো ভাই
দুটি আলাদা গল্প । একই শিরোনাম । শুধু বানানের তফাৎ ।

-------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------

৫)
সাল : ১৯৪৪ (১৩৫১)
শারদীয়া : বর্ষ-মঙ্গল
সম্পাদক : শৈলজানন্দ মুখোপাধ্যায়
শিবরাম-কাহিনি : অশ্ব থেকে অশ্বতর !
From the 'Blogus' blog.
অশ্ব থেকে অশ্বতর !’, বর্ষ-মঙ্গল’ (১৯৪৪)

অশ্বারোহণ ও অধঃপতন । এই বিষয়ে শিবরাম রচিত একাধিক ঘোড়েল গল্পের একটি ।
অবশ্য ‘ঘোড়ার সঙ্গে ঘোরাঘুরি কিংবা ‘ঘোড়ায় চড়ার ব্যায়াম বোধহয় বেশি পরিচিত ।

অশ্ব থেকে অশ্বতর !’-র ড্রিলমাস্টার রণদুর্ম্মদ বড়ুয়া উপস্থিত ‘জুতোর মতো অখাদ্য নেই কাহিনিতেও ।

-------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------

৬)
সাল : ১৯৪৫ (১৩৫২)
শারদীয়া : আলপনা
শিবরাম-কাহিনি : চটির সঙ্গে চটাচটি
From the 'Blogus' blog.
চটির সঙ্গে চটাচটি’, আলপনা’ (১৯৪৫)

এই কাহিনির সঙ্গে, শিবরাম চক্রবর্তী-র পূর্বপ্রকাশিত ‘জীমূতবাহনের জুতো -র মিল আছে ।
সেই গল্পের প্লটখানি আবার ধ্রুবেশ চন্দ্র অধিকারী (গৌরাঙ্গ প্রসাদ বসু ?)-র কাছ থেকে পান লেখক
আমার ভূত দেখা গ্রন্থে মিলবে এই স্বীকৃতি

আলপনা’ বার্ষিকীতেই ঘনাদা ১০ -র সঙ্গে আলাপনের পয়লা সুযোগ পান পাঠক ।
প্রেমেন্দ্র মিত্র-র সেই ‘মশা’ যতটা বিখ্যাত, ‘চটির সঙ্গে চটাচটি’-ও তাই ।

From the 'Blogus' blog.
শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়
(১৮৭৬ – ১৯৩৮) ।

চক্রবর্তী-র ব্যক্তিগত চটাচটির মাঝে, গল্পে এসেছে এক চট্টোপাধ্যায়-এর উপ-কিসসা ।
সেই তিনি, ‘দেনা-পাওনা’-র নাট্যরূপ ‘ষোড়শী’-কে ঘিরে, যাঁর সঙ্গে শিবরাম-এর সম্পর্ক প্রায় আদালতের দোরে পৌঁছয় ।
স্বয়ং শরৎচন্দ্র

সন্ধি-ভেদাভেদ বিস্মৃত হয়েই যেন শিবরাম নানা গল্পে শরৎ-প্রসঙ্গ আনেন ।
শরচ্চন্দ্রের সন্ধিভেদ১১ কিংবা ঢিলের বদলে পাটকেল !মনে আছে ?

প্রসঙ্গত, ‘চটির সঙ্গে চটাচটি’ ঈষৎ পরিবর্তিত চেহারায় আছে ‘হাসির চোটে দম ফাটে১২ পুস্তকে
সেখানে এর নাম ‘পাদুকার উপসংহার

শরৎচন্দ্র-র জুতোর প্রসঙ্গটুকু আলাদাভাবে ‘এক সত্যিকারের দুর্ঘটনা১৩ নামেও বেরয় ।
মজার ব্যাপার, হেমেন্দ্র কুমার রায়-ও এই একই শরৎ-কিসসা লিপিবদ্ধ করে গেছেন ।
তাঁর রচনাটির নাম ‘পাদুকার গঙ্গালাভ১৪

-------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------

৭)
সাল : ১৯৪৬ (১৩৫৩)
শারদীয়া : অঞ্জলি
শিবরাম-কাহিনি : সভ্য হওয়ার – নানান্ ফ্যাচাং
From the 'Blogus' blog.
সভ্য হওয়ার নানান্ ফ্যাচাং’, অঞ্জলি’ (১৯৪৬)

পিপীলিকা-জগতে পীপ করেছেন শিবরাম 
এই অনন্য এবং অনবদ্য কাহিনিকে একটু বদল করে ‘সভ্য সমাজের যেসব অসুবিধে’ নামে ‘গল্প নাটক অল্প না১৫ বইতে স্থান দেওয়া হয়

-------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------

৮)
সাল : ১৯৪৭ (১৩৫৪)
শারদীয়া : রাঙা-রাখী
শিবরাম-কাহিনি : শিক্ষাদান
From the 'Blogus' blog.
শিক্ষাদান, রাঙা-রাখী’ (১৯৪৭)

শিক্ষাদান করতে গিয়ে শিক্ষালাভ !
শিকেয় ওঠে মাস্টারি ।
নারায়ণ গঙ্গোপাধ্যায়-এর ‘ছাত্র-চরিতামৃত১৬ কিংবা শিবরাম প্রণীত ‘মন্টুর মাষ্টার১৭ -এর পাশাপাশি ‘শিক্ষাদান’-ও এক স্মরণীয় নজির ।
অবশ্য, এখানে ছাত্রের ছত্রাঘাতে নয়, নিজের লেট করার স্বভাবেই ‘টু লেট’ ঝোলার উপক্রম স্কুল-শিক্ষকের দরজায় ।

১৯৪৭ সালেই ‘শিক্ষাদান’ সংকলিত হয় শিবরাম চক্রবর্তী-র বড়দের বই ‘দেবতার জন্ম ও অন্যান্য গল্প সেই সঙ্গে মহা পাকিস্থানের পথে !১৮ -তে ।
সংযোজিত হল একটি আনকোরা সূচনা । কাহিনির নতুন নাম ‘শিক্ষা দেওয়া সহজ নয়
অকথিত কাহিনী১৯ গ্রন্থের পঞ্চম অধ্যায়ের শেষাংশেও ভিন্ন রূপে ‘শিক্ষাদান’-ই উপস্থিত ।
আবার ‘শিক্ষালাভ’ নামে এটি রয়েছে ‘বন্ধু চেনা বিষম দায়২০ -তে ।
ঐ বইতেই ‘শিক্ষাদান’ শীর্ষক একটি একেবারেই আলাদা গল্পও রয়েছে ।

-------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------

৯)
সাল : ১৯৪৮ (১৩৫৫)
শারদীয়া : আবাহন
শিবরাম-কাহিনি : মন্টুর গোয়েন্দাগিরি
From the 'Blogus' blog.
মন্টুর গোয়েন্দাগিরি, আবাহন’ (১৯৪৮)

চমক চাই ! যে-কায়দাতে ফায়দা মেলে, তা-ই সই ।
এই প্রবণতার ফলে রহস্য রস যে কখন পরিণত হয় হাস্য রসে ...

প্রচলিত গোয়েন্দা কাহিনির নামকরণ, কাঠামো, রগরগে রচনাভঙ্গি, সব বিষয়ে টিকটিকির ঠিক-ঠিক বলে দেওয়া – শিবরাম-এর প্রসন্ন খোঁচার সম্মুখীন হয়েছে বারংবার
শার্লক হোমস দি সেকেন্ড২১, ‘একটা খুনের গল্প২২, ‘দানবের জন্ম’, কল্কেকাশি সিরিজের গল্প ২৩, উপন্যাসের মধ্যে ‘কৃতান্তের দন্তবিকাশ২৪, ‘বৃহৎ ছাগলাদ্য যুদ্ধ২৫, ‘কে হত্যাকারী ?’ – সর্বত্রই ।
ধাপে ধাপে রহস্য-প্রাসাদ নির্মাণ । অন্তে ধাপ্পার প্রকাশ । পতন ।

মন্টুর গোয়েন্দাগিরি’-ও সেই ধাঁচের ।
শুধু চরিত্রদের নাম পালটে দিয়ে ‘গদাই-এর গোয়েন্দাগিরি’ বা ‘হালকা হাসির গল্প’ শিরোনামেও এটি প্রকাশিত হয়েছে ।

-------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------

১০)
সাল : ১৯৪৯ (১৩৫৬)
শারদীয়া : নবারুণ
শিবরাম-কাহিনি : সমগোত্র
From the 'Blogus' blog.
সমগোত্র, নবারুণ’ (১৯৪৯)

মিস্ট্রির মত, জনপ্রিয় অলৌকিক কাহিনির প্রতিও কটাক্ষ হেনেছেন শিবরাম চক্রবর্তী
“কত অজানারে জানাইলে তুমি কত ঘরে দিলে ঠাঁই” (সত্য ঘটনা)২৬, ‘আমার ভূত-দেখা২৭, ‘দশ নম্বর বাড়ির রহস্য২৮, ‘না ভূতের গল্প নয়২৯, ‘ভূত আর ভুতো !৩০, ‘দ্বিধাগ্রস্ত আমি !’ (নামান্তর – ‘নিজের ভূত নিজে দেখা !’), ‘গোলদিঘির ভূত !’, ‘ভূত না অদ্ভুত ?’ – সবারই মনে থাকবে ।

সমগোত্র’-র সম গোত্রের আর এক কিসসা ‘আশ্রম পীড়া৩১
দুটি গল্পেরই চরিত্রদ্বয় এককালে মানুষ ছিলেন ।

-------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------

১১)
সাল : ১৯৫০ (১৩৫৭)
শারদীয়া : উদয়ন
শিবরাম-কাহিনি : খেলার ঠেলা
From the 'Blogus' blog.
খেলার ঠেলা, উদয়ন’ (১৯৫০)

পরপর দশটি কাহিনি ।
শিবরাম চক্রবর্তীপ্রতুল চন্দ্র বন্দ্যোপাধ্যায়-এর কলম-তুলি জুটিতে অভ্যস্ত ছিলেন দেব সাহিত্য কুটীর পূজাবার্ষিকী-র পাঠককুল
খেলার ঠেলা’-য় ছবি আঁকেন শৈল চক্রবর্তী (১৯০৯ – ১৯৮৯)
From the 'Blogus' blog.
শিল্পী শৈল চক্রবর্তী (১৯০৯ – ১৯৮৯)
অবশ্য, সেই ‘পঞ্চাননের অশ্বমেধ’ গ্রন্থ ৩২ থেকেই বোধহয় শিব্রাম-শৈল এক ব্র্যাকেটভুক্ত হয়ে গিয়েছিলেন । 
লেখক-এর কথায়, “আপনার ছবিতেই আমি থাকব - ... তাহলে আর বুড়ো হবো না, বুঝলেন৩৩ 

হয়েছেও তাই ।
আমাদের প্রিয় সাহিত্যিকের কখানি ফটোই বা মিলেছে ?
তার বিকল্প হিসাবে, সমস্ত সম্ভাব্য মুডে, শ্রীশৈল-র চিত্র থেকেই চেনা গেছে শিবরাম চক্রবর্তী-কে । অবিরাম ।
বয়স তাঁর বাড়েনি । 
দেব সাহিত্য কুটীর শারদীয়াসমূহের মধ্যে, ‘উদয়ন’ থেকেই শৈল-অঙ্কিত শিব্রাম-এর উদয় । 
খেলার ঠেলা’ শীর্ষচিত্রেই মার্কামারা কেশবিন্যাস ও বোন বিনি সহযোগে তিনি হাজির ।

বিনি-র বেড়াল ও তার চিকিৎসা সংক্রান্ত আরও একটি গল্প ‘অথ আয়োডিন-ঘটিত৩৪

-------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------

১২)
সাল : ১৯৫১ (১৩৫৮)
শারদীয়া : অভিষেক
শিবরাম-কাহিনি : সত্যবাদিতার পুরস্কার !
From the 'Blogus' blog.
সত্যবাদিতার পুরস্কার !, অভিষেক’ (১৯৫)

সত্যবাদিতার পুরস্কার !’-এর অলংকরণে ফিরলেন চিত্রশিল্পী প্রতুল বন্দ্যোপাধ্যায়

ইস্কুল-কেন্দ্রিক শিশু-কিশোর সাহিত্যে অদ্বিতীয় সুকুমার রায় বা মনোরঞ্জন ভট্টাচার্য
শিবরাম-ও কম যান না ।
বিশেষত স্কুল বা কলেজের বোর্ডিং-জীবন নিয়ে তাঁর বিচিত্র গল্পগুচ্ছ ।

ইঁদুরদের দূর করো৩৫, ‘সিদ্ধিলাভ !৩৬, ‘সীট + আরাম = সীটারাম’ কিংবা ‘-দ্বিতীয় পুরস্কার’-এ লেখক স্বয়ং একটি চরিত্র ।
আবার ‘আলেকজেন্ডারের দিগ্বিজয়৩৭ বা ‘মহাযুদ্ধের ইতিহাস৩৮ প্রভৃতি হস্টেল-কাহিনিতে তিনি অনুপস্থিত ।
সত্যবাদিতার পুরস্কার !’-এও ।
এর সত্যবাদী নায়কটির নাম সত্যপ্রিয় শুঁড়-ওলা বাবা৩৯ বা ‘সত্যপ্রিয়র সত্যপ্রিয়তা’-র ক্ষেত্রেও তাই । গল্পত্রয়ীর মূল সুরও কাছাকাছি ।


দেব সাহিত্য কুটীর পূজাবার্ষিকী-তে নারায়ণ গঙ্গোপাধ্যায়-এর ‘অভিষেক’ হল এই শারদীয়াতেই ।
এর চার-পাঁচ বছর আগেই সৃষ্ট হয়েছেন টেনিদা ৪০
অভিষেক’-এর ‘দুরন্ত নৌকা ভ্রমণ’ গল্পে অবশ্য তিনি নেই । তবে প্যালারাম হাজির । 

------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------- 


গোড়াতেই বলেছি, শিশু গল্পিকা’ (১৩৪৩)-র কথা । সম্পাদক ছিলেন সুধীরচন্দ্র সরকার 
এই বার্ষিকীর ১৩৪৪ সনের পুনর্মুদ্রণে মিলেছে শিবরাম চক্রবর্তী-র ‘অথ আয়োডিন-ঘটিত’ । 
অথচ ‘শিশু গল্পিকা’-র পরবর্তী কোনো সংস্করণ থেকে গল্পটি বেমালুম বাদ দিয়ে দেওয়া হয় ।
From the 'Blogus' blog.
বার্ষিকীশিশু গল্পিকা’ (১৯৩৬) ।
 
From the 'Blogus' blog.
অথ আয়োডিন-ঘটিত’, শিশু গল্পিকা’ (১৯৩৬) ।


  
দেব সাহিত্য কুটীর তালিকায় পাওয়া যাচ্ছে আর একটি নাম ‘ছোটদের মাধুকরী’ (১৩৪৫)
প্রকৃতপক্ষে, ব্রজমোহন দাশ সম্পাদিত এই বার্ষিকীর প্রকাশক নিউ বেঙ্গল প্রেস
From the 'Blogus' blog.
বার্ষিকীছোটদের মাধুকরী’ (১৯৩৮) ।
From the 'Blogus' blog.
খাদ্য-খাদক সম্বন্ধ, ছোটদের মাধুকরী’ (১৯৩৮)

ছোটদের মাধুকরী’-তে ছাপা শিবরাম-কাহিনি ‘খাদ্য-খাদক সম্বন্ধ
পরে ‘অগ্নিমান্দ্যের মহৌষধ’ শিরোনামে সুপরিচিত ।

-------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------

১৯৫৩ সালে বেরয় শিবরাম চক্রবর্তী-র ‘জন্মদিনের উপহার
গ্রন্থে, অন্যান্য রচনার সঙ্গে সংকলিত হল ‘মায়া-মুকুর’ (১৯৪০) থেকে শুরু করে ‘অভিষেক’ (১৯৫১) বার্ষিকীতে টানা প্রকাশিত লেখকের এক ডজন হাসির গল্প ।
মূল অলংকরণ সহ ।
From the 'Blogus' blog.

জন্মদিনের উপহার’ (১৯৫৩)
প্রচ্ছদ : প্রতুল চন্দ্র বন্দ্যোপাধ্যায়
প্রতুল চন্দ্র বন্দ্যোপাধ্যায়-এর প্রচ্ছদে,  শিব্রাম ধরা পড়লেন তাঁর পেটেন্ট হেয়ার স্টাইল সমেত

মাঝের বছর, ১৯৫২-তে দেব সাহিত্য কুটীর বার্ষিকী ‘পরশমণি’, চকরবরতী-র পরশহীন ।

-------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------

শারদ শিবরাম (১৯৪০ – ১৯৫১)’ বৃত্তান্ত শেষ  
এই পর্যায়ে, হর্ষবর্ধন-গোবর্ধন সিরিজের কোনো রচনা নেই দেব সাহিত্য কুটীর বার্ষিকীতে । ৪১
বারান্তরে এই প্রকাশনার বাদবাকি শারদীয়ায় ছাপা শিবরাম-এর ফিরিস্তি নিয়ে ফিরতে পারে BlOGUS
পাঠকদের ইচ্ছে থাকলে তবেই ।

আপনাদের প্রতিক্রিয়ার জন্য সাগ্রহে অপেক্ষমাণ BlOGUS  ব্লগ ।
সেই সঙ্গে ফেসবুক-এর BlOGUS. A Bogus blog  গ্রুপ :

-------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------

বিস্তারিত বিবরণের জন্য দ্রষ্টব্য : ‘শিবরামের জীবনকথা’, অরুণা চট্টোপাধ্যায়, ‘শিরোনাম শিবরাম’, কোরক, বইমেলা ১৯৯৬ ।

প্রকাশক : গ্রন্থম, ১৩৬৯ ।

‘শিব্রাম অমনিবাস’ ৬, নবপত্র প্রকাশন

‘হর্ষবর্ধন অমনিবাস’, এশিয়া পাবলিশিং

‘রামধনু’, চৈত্র ১৩৪৩

‘রামধনু’, জ্যৈষ্ঠ ১৩৪৪

‘মাসিক বসুমতী’, জ্যৈষ্ঠ ১৩৫৩

‘রংমশাল’, চৈত্র ১৩৪৭

প্রকাশক : ফাইন আর্ট পাবলিশিং হাউস, ১৩৪৮ ।

১০ দ্রষ্টব্য ঘনাদা গ্যালারি’ ওয়েবসাইট :

১১ ‘আনন্দমেলা’, পৌষ ১৩৮২

১২ প্রকাশক : দেব সাহিত্য কুটীর, ১৩৮৩

১৩ ‘আমার ভূত দেখা’, ফাইন আর্ট পাবলিশিং হাউস, ১৩৪৮ ।

১৪ ‘স্মরণের যাদুঘরে’, হেমেন্দ্রকুমার রায়, ডি এম লাইব্রেরি, ১৩৬৩

১৫ প্রকাশক : দেব সাহিত্য কুটীর, ১৯৭০

১৬ ‘শিশুসাথী’, বৈশাখ ১৩৫৬

১৭ ‘রামধনু’, আষাঢ় ১৩৪১

১৮ প্রকাশক : দি বুক এম্পরিয়াম লিমিটেড, ১৩৫৪ ।

১৯ প্রকাশক : বাণীশিল্প, ১৩৮৩ (?) ।

২০ প্রকাশক : রীডার্স কর্নার, ১৩৫৫ ।

২১ ‘মৌচাক’, মাঘ ১৩৪৭ ; নামান্তরে ‘অমলের গোয়েন্দাগিরি’

২২ ‘রামধনু’, আশ্বিন ১৩৫৬

২৩ দ্রষ্টব্য BlOGUS ব্লগে ‘অতিথি সমাবেশ : কল্কেকাশি , পরাশর (, ব্যোমকেশ)’ :

২৪ ‘জলছবি’ পত্রিকায় ধারাবাহিক প্রকাশিত, ১৩৪৪ (?)

২৫ ‘রংমশাল’-এ ধারাবাহিক, ১৩৪৮ – ১৩৪৯ ; অপর নাম ‘বর্মার মামা’

২৬ ‘রংমশাল’, কার্ত্তিক ১৩৪৪ ; ‘স্যাঙাতের সাক্ষাৎ’ ও ‘বাইশ ইঞ্চি পা’ এরই পরিবর্তিত রূপ

২৭ ‘রংমশাল’, বৈশাখ ১৩৪৮

২৮ ‘মৌচাক’, কার্ত্তিক ১৩৫৭

২৯ ‘মৌচাক’, বৈশাখ ১৩৫৮

৩০ ‘মৌচাক’, আশ্বিন ১৩৫৯

৩১ ‘মৌচাক’, কার্ত্তিক ১৩৫৮

৩২ প্রকাশক : এম. সি. সরকার অ্যান্ড সন্স, ১৩৪২ ।

৩৩ ‘শিবরাম অদ্বিতীয়’, শৈল চক্রবর্তী, ‘যষ্টিমধু’, শিবরাম শ্রদ্ধার্ঘ সংখ্যা, ১৩৮৮

৩৪ এটিই সেই কাহিনি ‘শিশু গল্পিকা’ (১৯৩৬) বার্ষিকীতে যা প্রকাশিত হলেও, পরে বর্জিত হয় ।
জন্মদিনের উপহার(দেব সাহিত্য কুটীর, ১৩৬০) সংকলনে ‘অথ আয়োডিন-ঘটিত’ পাওয়া যাবে । 

৩৫ ‘রংমশাল’, বৈশাখ ১৩৪৯

৩৬ ‘বার্ষিক শিশুসাথী’, ১৩৬৪

৩৭ ‘রামধনু’, ভাদ্র ১৩৪০

৩৮ ‘রামধনু’, চৈত্র ১৩৪০

৩৯ ‘মৌচাক’, ভাদ্র ১৩৩৯ (?) । 

৪০ নারায়ণ গঙ্গোপাধ্যায়-এর প্রথম প্রকাশিত টেনিদা-কাহিনি খট্টাঙ্গ ও পলান্ন’ (১৯৪৬) ।
দ্রষ্টব্য ‘টেনিদা ট্রেজারি’ ব্লগ :
https://tenida-treasury.blogspot.in/2016/11/Khattaanga-O-Palaanna.html
  

 
৪১ প্রথম প্রকাশিত হর্ষবর্ধন কাহিনির জন্য দ্রষ্টব্য BlOGUS ব্লগে ‘হাজির হলেন হর্ষবর্ধন !: 
 
-------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------


শিবরাম চক্রবর্তী-র গ্রন্থপঞ্জীর বিবরণ প্রধানত গৃহীত হয়েছে শ্রী দেবাশিস মুখোপাধ্যায় সংকলিত ‘ শিবরাম চক্রবর্তীর বই-তালিকা’ থেকে,
‘শিরোনাম শিবরাম’, কোরক, জানুয়ারি ২০০৮ সংস্করণ ।

-------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------

10 comments:

  1. লেখা আর ছবিতে ভরা এই ব্লগ অমর রহে!

    ReplyDelete
    Replies
    1. অশেষ ধন্যবাদ ঋজু বাবু, Blogus-এর পাশে থাকার জন্য !

      Delete
  2. Replies
    1. অশেষ ধন্যবাদ স্যমন্তক !
      পাঠকদের মতামত না পেলে উৎসাহ হারিয়ে ফেলি ।

      Delete
  3. অনবদ্য অসাধারণ সৌরভ বাবু। শিবরাম চক্রবর্তী ওপর থেকে আশীর্বাদ দিচ্ছেন।

    ReplyDelete
    Replies
    1. অশেষ ধন্যবাদ প্রিয়ব্রত বাবু ।
      আমাদের এই উদ্যোগ নিতান্তই অকিঞ্চিৎকর । কোনো গবেষণা নয় । প্রিয় মানুষদের কাজ সবার সঙ্গে ভাগ করে নেওয়ার প্রয়াস ।
      তবু যে আপনাদের মত কয়েকজনের ভাল লেগেছে, এটাই আমাদের বিশাল প্রাপ্তি ।
      ভাল থাকবেন ।

      Delete
  4. বাহবা। সৌরভে আমোদিত হচ্চি। সর্বদা।

    ReplyDelete
    Replies
    1. অশেষ ধন্যবাদ !
      Blogus ব্লগে স্বাগত জানাই ।

      Delete
  5. আরে এটা miss করে গেছিলাম, একটা রামধনু আর শিবরাম হয়ে যাক, অনেকেই যানে না বাড়ি থেকে পালিয়ে রামধনুতে বেরিয়েছিল।

    ReplyDelete
    Replies
    1. দারুণ প্রস্তাব, অর্ণব !
      নিশ্চয় চেষ্টা করব ।
      শিবরাম চক্রবর্তী-র কত অসাধারণ সৃষ্টির সাক্ষী থেকেছে 'রামধনু' ।

      Delete